আ’লীগের বিদ্রোহ বশে, দুঃচিন্তায় বিএনপি

হাসান আরেফিন,নলছিটি ।।
নলছিটি পৌরসভা নির্বাচনে আ’লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী মাছুদ খানসহ ০৩জনই মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এতে আ’লীগে স্বস্তিতে ফিরে এলেও দুঃচিন্তায় পড়েছে বিএনপি।
উপজেলা নির্বাচন কমিশন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে,নলছিটি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী তছলিম উদ্দিন চৌধুরী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এ ছাড়া দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে ক্ষুব্ধ সাবেক মেয়র মাছুদ খান, আ’লীগ নেতা ইঞ্জিনিয়র মাসুম হোসেন, আবু সাঈদ মোস্তফা কামাল মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দেন। ওদিকে বিএনপি মনোনীত মজিবর রহমান দলের একক প্রার্থী হন। এদিকে মনোনয়ন প্রতাহারের শেষ দিন আ’লীগের বিদ্রোহী ও হেভিওয়েট মেয়র প্রার্থী মো.মাছুদ খানসহ তিন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করায় বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে দুচিন্তা জন্ম নেয়। জেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির বলেন, দলের সিদ্ধান্তের প্রতি অনুগত হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীরা প্রার্থিতা প্রত্যাহার করায় নেতাকর্মীদের মধ্যে চাঞ্চ্যলতা ফিরে এসেছে। তারা প্রার্থিতা প্রত্যাহার করায় নলছিটি পৌরসভার মেয়র পদে আ’লীগ প্রার্থীর জয় সুনিশ্চিত হলো। প্রার্থিতা প্রত্যাহার সম্পর্কে ইঞ্জিনিয়র মাসুম হোসেন বলেন, ‘আমি মনেপ্রাণে মুজিব আর্দশের সৈনিক। সব সময় বঙ্গবন্ধুর আদর্শেই থাকতে চাই। আমার কোনো সিদ্ধান্তের কারণে আ’লীগের কোন ক্ষতি হোক চাইনি বলেই মেয়র প্রার্থী থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছি।’
অন্যদিকে, আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা মাঠ ছাড়ায় কিছুটা বেকায়দায় পড়েছে বিএনপি। এতদিন তারা দলীয় একক প্রার্থী দিয়ে টেনশন ফ্রি ছিল। স্থানীয়রা মনে করেন আ’লীগের সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করলে বিএনপির ভোট ব্যাংকে ভাটা পড়বে। সর্বশেষ ভোটের রসায়ন পাল্টে যেতে পারে বলেও মন্তব্য করেছেন তারা। বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মজিবর রহমান জয়ে শতভাগ আশা ব্যক্ত করে বলেন, ‘আ’লীগের একক প্রার্থী থাকলেও দুঃচিন্তার কোনো কারণ নেই।’ জনগন ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনতে ধাণের শীষে ভোট দিবে’। উপজেলা বিএনপির সাবেক আহবায়ক অ্যাড.আনিচুর রহমান হেলাল বলেন, ‘আ’লীগে একক প্রার্থী থাকলেও আমরা সেটিকে খুব বড় সমস্যা মনে করছি না।’ এতে পৌরসভার বিএনপির ভোট ব্যাংকে কোন প্রভাব পড়বে না।