ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় ভাইকে পিটিয়ে আহত করলো বখাটেরা

প্রিন্স তালুকদার।।বরিশালে নবম শ্রেনীর এক স্কুলছাত্রীকে ইভটিজিং করার সময় বাধা দেওয়ায় তার ভাইকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে বখাটেরা। গত শনিবার (১ জুলাই) বরিশাল সদর উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের সারসী গ্রামের স্লুইজগেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকেই প্রধান আসামী  বেল্লাল সরদারের ছেলে মৌসুমী শ্রমিক পারভেজ সরদার (২০) ও শাহিন হাওলাদারের ছেলে বরিশাল বি এম কলেজের ছাত্র হাসান হাওলাদার (১৮) সহ সহযোগীরা আত্মগোপনে রয়েছে। বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী, ইভটিজিং কেন্দ্র করেই হামলা সংঘটিত হয়েছে। রাতভর এলাকায় অভিযান চালিয়েছি। অভিযুক্তদের বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়ছে। আসামিদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।’ স্থানীয়রা জানান, মেয়েটি লাকুটিয়া ইসলামীয়া সিনিয়র মাদ্রাসার নবম শ্রেনীর ছাত্রী। মাদ্রাসায় আসা যাওয়ার পথে একই এলাকার বাসিন্দা  পারভেজ তাকে প্রেমের প্রস্তাব এবং নানাভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। গত শুক্রবার (৩০ জুন) মেয়েটি মামার বাড়ী যাওয়ার পথে বিমানবন্দর থানাধীন মোহনগঞ্জ কেরানী বাড়ীর সামনে পারভেজ ও হাসানসহ অচেনা ৫/৬ যুবক অটোরিক্সায় বিপরীত দিক থেকে এসে মেয়েটির গায়ে কাদা পানি ছিটিয়ে কাপড় নষ্ট করে দেয়। পরের দিন মেয়েটি ওর ভাই মিরাজকে নিয়ে বরিশাল সদর উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের সারসী গ্রামের স্লুইজগেট এলাকায় পারভেজের বাড়ীর সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় পারভেজ ও হাসানসহ অচেনা ৫/৬ যুবক অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে গলায় থাকা ওড়না টানিয়া নিয়ে কিল ঘুষি ও লাঠি মেরে আহত করে। মেয়েটির ভাই মিরাজ, বোনকে রক্ষার চেষ্টা করলে তাকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। বখাটেদের হুমকিতে উদ্বেগ, উৎকন্ঠায় নিরাপত্তাহীনতায় দিনযাপন করছে মেয়েটির অসহায় পরিবার। ইভটিজিং প্রতিরোধে এলাকার অপ্রতিরোধ্য ইভটিজারদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও মেয়েটির অসহায় পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসক ও আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর প্রতি দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।