দুই লঞ্চেরই রুট পারমিট স্থগিত

মেঘনায় দুই লঞ্চের সংঘর্ষে দুই যাত্রী নিহত হওয়ার পর লঞ্চ দুটির রুট পারমিট স্থগিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শামছুদ্দোহা খন্দকার মঙ্গলবার সাংবাদিকদের এই কথা জানান।

 

মোহাম্মদ শামছুদ্দোহা খন্দকার জানিয়েছেন, ঘটনার পরপরই সুন্দরবন-৮ ও পারাবত-৯ লঞ্চের রুট পারমিট স্থগিত করা হয়েছে।

 

অন্যদিকে ঘটনা তদন্তে সদরঘাটের সার্ভেয়ার (লঞ্চ পরিদর্শক) শাহারিয়ার হোসেনকে প্রধান করে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া উভয় নৌযানের মাস্টারদের সনদ ও লঞ্চ দুটির সার্ভে সনদ স্থগিত করেছে সমুদ্র পরিবহন অধিদফতর।

 

সোমবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে চাঁদপুরের পুরাণ বাজার হরিসভা এলাকায় মেঘনা নদীতে সুন্দরবন-৮ ও পারাবত-৯ লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুইজনের মৃত্যু। এ সময় আহত হয়েছে আরো কমপে ১০ জন।

 

জানা যায়, ঘনকুয়াশার কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এতে সুন্দরবন লঞ্চের সামনের অংশ তিগ্রস্ত হয় এবং এই লঞ্চের ভিআইপি কেবিনে থাকা যাত্রী শাহানা বেগম (৬৫) এবং সাকিল (৬) ঘটনাস্থলে মারা যায়। আহতদের প্রথমে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাদের অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়।

আহতরা হচ্ছেন, রূপা (২৭), ডালিয়া (৩৮), শিউলী (৩৫), রাব্বি (১১), মনোয়ারা বেগম (৫০), সুরাইয়া (২৮), জেরিন (৮), জাহাঙ্গীর (৩৬) ও মো. ওয়াহিদ (২০)। অপর একজনের নাম জানা যায়নি।

 

চাঁদপুর বন্দর কর্মকর্তা মোবারক হোসেন জানান, এ ব্যাপারে নৌ-পুলিশ ফাঁড়িতে একটি জিডি করা হয়েছে।