বরিশালের গৌরনদীতে অসামাজিক কাজের লিপ্ত থাকার অভিযোগে প্রবাসীর বাড়িতে হামলা ভাংচুর অগ্নিসংযোগ

আগৈলঝাড়া ॥ গৌরনদী উপজেলার দক্ষিন বিজয়পুর গ্রামের সৌদী প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে গৌরনদী বাসস্ট্যান্ডের ব্যবসায়ী অনু সাহার অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে স্থানীয় কতিপয় যুবক বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর, লুটপাট করে বাড়ির বেড়ায় অগ্নিসংযোগ করেন। হামলায় ব্যবসায়ী ও প্রবাসীর স্ত্রী আহত হন।
প্রত্যক্ষদর্শী, পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গৌরনদী পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের  দক্ষিণ বিজয়রপুর গ্রামের জনৈক গৃহকর্তা দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর যাবৎ সৌদী আরবে রয়েছেন। তার স্ত্রী ৫বছরের একটি পুত্র  সন্তান নিয়ে পালরদী হাইস্কুলের পিছনে বাড়ি করে একাকী ওই বাড়িতে বসবাস করেন। স্থানীয় যুবক ও এলাকাবাসীদের মাধ্যমে  জানা গেছে, গৌরনদী বাসস্ট্যান্ডের ব্যবসায়ী অনু সাহা ওই বাড়িতে নিয়মিতভাবে আসা যাওয়া করেন এবং প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে প্রায়ই অসামাজিক কাজে লিপ্ত হন। তারা ব্যবসায়ী অনু সাহাকে বিভিন্ন সময় একাজ থেকে ফিরে যাওয়ার জন্য অনুরোধ  করেন। তারপরেও অনু সময় সুযোগমত এসে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হয়। গতকাল দুপুরে ব্যবসায়ী অনু ওই বাড়িতে গেলে স্থানীয়রা হাতেনাতে ধরে তাকে বেদম মারধর করে। এসময় প্রবাসীর স্ত্রী তাকে রক্ষায় এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করা হয়। প্রবাসীর স্ত্রী অভিযোগ করেন, হামলাকারীরা তাদেরকে পিটিয়ে জখম করে এবং তার বসতঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে একটি মোবাইল ফোনসহ মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। হামলাকারীরা চলে যাওয়ার সময় তার বাড়ির সীমানার বেড়ার দু’পাশে অগ্নিসংযোগ করেন। স্থানীয়রা জানান, তারা আগুনের লেলিহান শিখা দেখে দৌঁড়ে এসে আগুন নিভিয়ে ফেলে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ব্যবসায়ী অনুকে আটক করেছে। ব্যবসায়ী অনু সাহা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, প্রবাসীর স্ত্রী আমার দোকানের নিয়মিত কাস্টমার। তার কাছে পাওনা টাকা আনার জন্য গেলে স্থানীয় বখাটে বাদল (২০), পালরদী গ্রামের রাজ্জাক খান (৩৫) সহ ১৫-২০জন ওই বাড়িতে তার ওপর হামলা চালায় এবং ষড়যন্ত্রমূলক আমাকে মারধর করে পুলিশে দেয়া হয়। গৌরনদী থানার ওসি আবুল কালাম জানান, বিক্ষুব্ধ জনতা বাড়ির বেড়ায় অুিগ্নসংযোগ করে অনু সাহা নামে একজনকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে।