বরিশালের মুলাদীতে দরপত্র ছাড়াই তিন লক্ষাধীক টাকার সরকারী গাছ বিক্রির অভিযোগ

বরিশালের মুলাদীতে দরপত্র ছাড়াই তিন লক্ষাধিক টাকার সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলা প্রশাসনের আওতাধীন মুলাদী প্রেসক্লাব রোডের ঐ ১৩টি মেহগনি গাছ দরপত্র ছাড়াই কেটে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে উপজেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে। উপজেলার মাসিক সমন্বয় সভায় সিদ্ধান্ত নিয়ে গাছ কাটা হয়েছে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দাবী করলেও কোন সভা হয়নি বলে দাবী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের। গাছ কাটার বিষয়ে কিছুই জানা নেই জেলা প্রশাসকের। স্থানীয় বন বিভাগকেও এ বিষয়ে কিছু অবহিত করা হয়নি।
গত শুক্রবার হঠাৎ করে কিছু শ্রমিক প্রেসক্লাব থেকে থানা স্টেডিয়াম পর্যন্ত সড়কের পাশে থাকা মেহগিনি গাছ কাটা শুরু করেন। ঐ সময় স্থানীয়রা তাদের কাছে গাছ কাটার কারন এবং নির্দেশদাতা সম্পর্কে জানতে চান। গাছ কাটায় নিয়োজিত শ্রমিক মঞ্জু মোল্লা স্থানীয়দের জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান তারিকুল হাসান মিঠু ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুভ্রা দাস গাছ কাটার নির্দেশ দিয়েছেন। তাদের নির্দেশ অনুযায়ী শ্রমিকরা ১৩টি মেহগিনি গাছ কেটে সড়কের পাশে ফেলে রাখে। সরকারি গাছ কাটতে হলে দরপত্র আহ্বান বাধ্যতামূলক। কিন্তু মুলাদী উপজেলা পরিষদের ১৩টি গাছ কাটার ক্ষেত্রে কোন নিয়ম মানা হয়নি। উপজেলা চেয়ারম্যান এবং ইউএনও তাদের খেয়ালখুশী মতো গাছ কেটেছেন।
মুলাদী উপজেলা বন কর্মকর্তা খলিলুর রহমান জানান, বেশ কিছুদিন পূর্বে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুলাদী প্রেসক্লাব থেকে থানা স্টেডিয়াম পর্যন্ত সড়কের দুই পাশের গাছগুলো পরিমাপ করার জন্য মৌখিকভাবে নির্দেশন দেন। কিন্তু গাছ গুলোর পরিমাপ করা হয়নি। এর বেশী তিনি কিছু জানেন না।
মুলাদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুভ্রা দাস জানান, মুলাদী পৌরসভার রাস্তা সংস্কারের জন্য গাছগুলো অপসারণের আবেদন করা হয়েছে। গাছগুলো দরপত্র আহ্বান করে বিক্রি করতে অনেক সময়ের প্রয়োজন। তাই জেলা প্রশাসককে অবহিত করে এবং উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় বিষয়টি উত্থাপন করে গাছগুলোর দাম নির্ধারন করে একজনের কাছে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। সেই টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেওয়া হবে। তবে উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় গাছ বিক্রি কিংবা কর্তনের বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়নি বলে দাবী করেছেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মাইনুল আহসান সবুজ।
এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক এস.এম অজিয়র রহমান জানান, মুলাদী উপজেলা প্রশাসনের গাছ বিক্রির বিষয়ে তার কিছু জানা নেই।