বরিশালে বিনামূল্যে চক্ষু সেবা ক্যাম্পে দু’ সহ¯্রাধিক রোগীর চিকিৎসা

বরিশাল সদর উপজেলা ও সিটি কর্পোরেশন এলাকার অসচ্ছল রোগীদের বিনামূল্যে চক্ষু সেবা ক্যাম্পে দু’ হাজার রোগীর চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে যেসকল রোগীদের চোখের ছানি, কর্নিয়া অপারেশন সহ চোখের লেন্স প্রয়োজন তাদের সনাক্ত করে পর্যায়ক্রমে ব্যবস্থার উদ্যোগ নেয়া হয় ক্যাম্প থেকে। গতকাল সোমবার থেকে দু’দিন ব্যাপী ৭ সদস্যের চক্ষু মেডিকেল ক্যাম্পের এ উদ্যোগ নিয়েছেন এসআর সমাজ কল্যান সংস্থা। সংস্থার চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন রিপনের অর্থায়নে ও সার্বিক পরিচালনায় চিকিৎসা সেবা পরিচালনা করে ইস্পাহানী ইসলামিয়া চক্ষু ইন্সটিউট ও হাসপাতাল। ১ম দিন এই মেডিকেল টিম প্রায় এক হাজার রোগীর ও দ্বিতীয় আজ মঙ্গলবার এক হাজার রোগীকে সেবা দেয়া হবে।
ইস্পাহানী মেডিকেল ক্যাম্পের বরিশাল প্রধান ডাঃ নজরুল ইসলাম জানান, এই মহতী কার্যক্রমে অংশগ্রহন করতে পেরে তারা আনন্দিত। এস.আর সমাজ কল্যান সংস্থার চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন রিপন জানান, ঈদের পূর্বে সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়ন ও সিটি কর্পোরেশন এলাকা থেকে দু’ হাজার রোগীকে সংস্থার উদ্যোগ ঈদ উপহার হিসেবে চোখের চিকিৎসার উদ্যোগ নেয়া হয়। সে অনুযায়ী কর্মীরা অসচ্ছল নারী-পুরুষকে সনাক্ত করে ইস্পাহানী ইসলামিয়া চক্ষু ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালের মাধ্যমে চিকিৎসা দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়। তিনি বলেন এ দুই দিনে দু’ হাজার চক্ষু রোগীর মধ্যে বিনামূল্যে ছানি, কর্নিয়া অপারেশন, চোখের লেন্স লাগানো হবে। সংস্থার কর্মকর্তারা জানান, প্রাথমিক ভাবে বরিশাল সদর উপজেলা ও সিটি কর্পোরেশন এলাকার ৫ হাজার দরিদ্র রোগীকে এ সেবা দেওয়ার প্রাথমিক কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে যদি রোগীর সংখ্যা পাঁচ হাজারেরও অধিক হয় তবুও সদর উপজেলার একজন অস্বচ্ছল মানুষও যেন অর্থের অভাবে অন্ধত্ব অভিশাপে না ভোগে সেই উদ্দেশ্যে এ কার্যক্রম চলমান থাকবে।
বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ১৫নং ওয়ার্ড বাসিন্দা বৃদ্ধা মরিয়ম বিবি বলেন শেষ বয়সে বিনা পয়সায় চোখের ছানি অপারেশন করতে পারবেন এই জন্যে খুব খুশি তিনি। তার মত আরও অনেক হতদরিদ্র চোখের চিকিৎসা বিনা পয়সায় করতে পেরে আনন্দিত।
গতকাল সোমবার সংস্থার প্রধান কার্যালয় চরবাড়িয়ার বাটনা এলাকায় এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন, এস.আর সমাজ কল্যান সংস্থার চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন রিপন। এসময় উপস্থিত ছিলেন সংস্থার সভাপতি মোঃ নজরুল ইসলাম আকন, প্রধান সমন্বয়কারী মোঃ আঃ মালেক হাওলাদার, চাঁদপুরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ফারুক আলম লিটন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ওহাব মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ আঃ মালেক, বীর মুক্তিযোদ্ধা রুস্তুম আলী ফরাজী প্রমুখ।
উল্লেখ্য, বরিশাল সদর উপজেলা ও সিটি কর্পোরেশনের সর্বত্র দারিদ্র পরিবারের মেধাবী সন্তানের লেখাপড়ার খরচ-পরীক্ষার ফি প্রদান, প্রাকৃতিক দুর্যোগে সহযোগীতা, বিধবা, কন্যাদায়গ্রস্থ পিতা এবং গুরুতর অসুস্থদের চিকিৎসায় সব ধরনের আর্থিক সহায়তা ও সহযোগীতা প্রদান করে অসহায় মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন সংস্থার চেয়ারম্যান মোঃ সালাহউদ্দিন রিপন।