বরিশালে সরকারি- বেসরকারি ও ব্যক্তি উদ্যোগে খাদ্য সহায়তা প্রদান। শেবাচিম হাসপাতাল আন্তঃবিভাগ চিকিৎসক পরিষদের উদ্যোগে সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফেরা রোগীদের অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

বরিশালে করোনার প্রভাবে কর্মহীন অসহায় হতদরিদ্র মানুষের ঘরে ঘরে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। রবিবার নগরী সহ সদর উপজেলার বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়নে সিটি করপোরেশন, সদর আসনের এমপি এবং চেম্বার সভাপতির উদ্যোগে ত্রান বিতরন করা হয়। এছাড়া মেট্রোপলিটন পুলিশ, র‌্যাব-৮ ও জেলা পুলিশের উদ্যোগে কর্মহীন মানুষের ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়। চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরা রোগীদের আর্থিক ও খাদ্য সহায়তা দেয় শেবাচিম হাসপাতাল আন্তঃবিভাগ চিকিৎসক পরিষদ। রবিবার সকাল থেকে নগরীর ২ নম্বর ওয়ার্ড ও পদ্মাবতি সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের কর্মহীন দরিদ্র মানুষের ঘরে ঘরে দেড় হাজার প্যাকেট খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয় সিটি করপোরেশন। এছাড়া পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম এমপি’র পক্ষে সদর উপজেলার চরবাড়িয়া, জাগুয়া, রায়পাশা-কড়াপুর, কাশীপুর, শায়েস্তাবাদ, চরমোনাই, চন্দ্রমোহন, চাঁদপুরা ও চরকাউয়া ইউনিয়নে ৩ হাজার ৫শ’ ৫ পরিবারকে সরকারী খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়া হয়। এছাড়াও দুটি হটলাইন নম্বরে ফোন পেয়ে প্রতিমন্ত্রীর ব্যক্তিগত তহবিল থেকে শনিবার ৬৫০ পরিবার এবং রবিবার ৫০০ পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়। আজ পর্যন্ত প্রতিমন্ত্রীর পক্ষে প্রায় ৮ হাজার পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রীর ঘনিস্ট সহোচর মহানগর যুবলীগ যুগ্ম আহ্বায়ক মাহমুদুল হক খান মামুন। বরিশাল চেম্বার সভাপতি ও সুন্দরবন নেভিগেশনের চেয়ারম্যান মো. সাইদুর রহমান রিন্টুর উদ্যোগে বরবিবার সদর উপজেলার চরমোনাই ও টুঙ্গিবাড়িয়া ইউনিয়নে সাড়ে ৩শ’ পরিবার সহ গত ৩ দিনে বিভিন্ন ইউনিয়নে ১ হাজার ২শ’ পরিবারে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়। মেট্রোপলিটন পুলিশের উদ্যোগেও রবিবার নগরীর ৪ থানা এলাকার শতাধিক কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়া হয়। জেলা পুলিশের উদ্যোগেও ১ হাজার ৩শ’ পরিবারে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়া হয়। রবিবার জেলা পুলিশের পক্ষে আগৈলঝাড়ায় কর্মহীন অসহায় দরিদ্রদের ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেন আগৈলঝাড়া থানার ওসি মো. আফজাল হোসেন। এছাড়া র‌্যাবের পক্ষ থেকে সুন্দরবনের আত্মসমর্পনকৃত ২৮৪ জলদস্যু সহ দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলের ১১ জেলায় ৬৫০ জনের ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম চলমান রয়েছে বলে জানিয়েছেন র‌্যাব-৮ কর্মকর্তা মেজর মো. খালেদ। এদিকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আন্তঃবিভাগ চিকিৎসক পরিষদের উদ্যোগে রবিবার তাদের নিজস্ব অর্থায়নে সুস্থ হয়ে ঘরে ফেরা রোগীদের মাঝে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। একই সাথে মাস্টার রোল কর্মচারীদেরও আর্থিক অনুদান দেয় তারা।