বরিশালে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ভ্রাম্যমান আদালতের পৃথক অভিযান। মোহনা জেনারেল স্টোর সহ ৫ মোটর সাইকেল চালককে জরিমানা

বরিশাল নগরীতে জনসমাগম রোধ এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে আজও দুটি ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়েছে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে নগরীতে দুইটি টিম অভিযান পরিচালনা করেন। তারা মানুষকে ঘরে থাকতে উদ্বুদ্ধ করেন। এসময় টিসিবি’র ন্যায্য মূলে পন্য বিক্রি ও খাদ্য বিভাগের ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি তদারকী করেন ছাড়াও বিভিন্ন ব্যাংকে গিয়ে সামাজিক দূরত্ব মেনে ব্যাংকিং করার জন্য সংশ্লিস্ট কর্মকর্তাদের আহ্বান জানায়। এছাড়া দোকানে জনসমাগম করায় নগরীর সদর রোডের মোহনা জেনারেল স্টোরকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা এবং মোটর সাইকেলে ৩জন আরোহী ওঠানোয় ৫টি মোটর সাইকেল আটক করে ১ হাজার ৮শ’ ৫০ টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় নগরীর বাংলাবাজার, আমতলা, সাগরদী, রূপাতলী হাউজিং, রূপাতলী বাস টার্মিনাল, সদর রোড, ত্রিশ গোডাউন, বান্দ রোড ও চৌমাথায় অভিযান পরিচালনাকালে বিভিন্ন জনসমাগম ছত্রভঙ্গ করেন। এ সময় জনগনকে নিজ নিজ ঘরে থাকতে কাউন্সিং সহ উদ্বুদ্ধ করা হয়। অভিযানকালে সরকারী নির্দেশ উপক্ষো করে মোটর সাইকেলে ৩জন আরোহী ওঠানোয় নগরীর সাগরদী এলাকায় ৩টি মোটর সাইকেল আটক করেন তারা। প্রতিটি মোটর সাইকেল বাবদ ৫শ’ টাকা করে মোট ১ হাজার ৫শ’ টাকা করে জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত এবং সদর রোড এলাকায় মোটর সাইকেলে ৩জন আরোহী ওঠানোয় ২টি মোটর সাইকেল চালকের কাছ থেকে ৩৫০ টাকা জরিমানা আদায় করেন। অপরদিকে নগরীর সদর রোডের মোহনা জেনারেল স্টোরে গিয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখা সহ জনসমাগম করায় মোহনা জেনারেল স্টোর থেকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন। অভিযান দুটি পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুল ইসলাম ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জিয়াউর রহমান। জনসমাগম রোধ ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা ছাড়াও নগরী সহ জেলার সর্বত্র টহল দিচ্ছে সেনা বাহিনী, র‌্যাব ও পুলিশ। এছাড়াও বিভিন্ন স্থানে চেকপোস্ট স্থাপন করে তল্লাশী চালাচ্ছে পুলিশ। বরিশাল জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান জানান, জনস্বার্থে এধরনের অভিযান অব্যহত থাকবে।