বিএম কলেজের অতীত স্মৃতি মনে করে আবেগ আপ্লুত শিক্ষা সচিব

কাইয়ুম আহমেদ ॥
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ মাহবুব হোসেন সরকারী বিএম কলেজে এসে অতীত স্মৃতি মনে করে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি শিক্ষা জীবনে বিএম কলেজে অধ্যায়নরত থাকাকালে নানান স্মৃতি নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি শুক্রবার সন্ধ্যায় বরিশাল সরকারি ব্রজমোহন কলেজে মানসম্মত শিক্ষা অর্জনে করনীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন। তিনি বিএম কলেজে পরিদর্শনকালে শিক্ষকরা নানান দাবী জানালে তিনি বলেন আমি এ কলেজের ছাত্র ছিলাম তাই আপনাদের প্রতি আমারও অনেক দাবী রয়েছে। মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে তিনি বলেন বাংলাদেশ এগিয়া যাচ্ছে আর বাংলাদেশ এগিয়ে গেলে আপনারা এগিয়ে যাবেন। আজকের বাংলাদেশ আপনাদের হাতে গরা দেশ। মুজিব বর্ষ আমরা এমন ভাবে উজ্জাপন করি যাতে সারা বিশ্ব দেখুক এমন যদি কিছু করতে পারি তাহলে আমি স্বার্থক হব। গবেষনা শিক্ষার একটা অংশ। শিক্ষার বড় ভুমিকা রাখে শিক্ষক। বিএম কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. শফিকুর রহমান সিকদারের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো: ইউনুস, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বরিশাল অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, বিএম কলেজ শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. আল-আমিন সরোয়ার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম সরদার প্রমুখ।
এর আগে সকালে বরিশাল সদর উপজেলার সিংহেরকাঠী বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ে সুবর্ন জয়ন্তী ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন শিক্ষা সচিব। সেখানে আলোচনা সভায় বিশেষ আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এ্যালামনাই এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি একে আজাদ, বিশেষ অতিথি ছিলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. ছাদেকুল আরেফিন, বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো: ইউনুস, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বরিশাল অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন, বরিশাল সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহাবুবুর রহমান মধু প্রমূখ। এসময় শিক্ষা সচিব বলেন প্রতিটা বিদ্যালয়ে কারিগরি শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা হবে বলে জানিয়েছেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ মাহবুব হোসেন। তিনি আরো বলেন, শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়ন করা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অঙ্গীকার। পরিমানগত আমরা অনেক কিছু করেছি কিন্তু এখন যদি আমরা গুনগত দিকে না যাই তাইলে পরিমান দিয়ে আর লাভ হবে না। শিক্ষার অন্যতম উদ্দেশ্যে হলো মানব সম্পদ তৈরী করা। আমরা চাই শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষাটা যাতে কর্মক্ষেত্রেও প্রয়োগ করতে পারে। ইতিমধ্যে আমরা কারিগরি শিক্ষাকে মূল শিক্ষার সাথে মেইনস্ট্রিম করার জন্য কার্যক্রম শুরু করেছি। তারপরও আমরা বেশ কিছু প্রকল্প গ্রহণ করেছি যাতে আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় চাহিদাকে মাথায় রেখে কিছু ট্রেড কোর্সকে চিহ্নিত করা হয়েছে। সেই ট্রেডে শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। শুক্রবার বিদ্যালয়টির সুবর্ন জয়ন্তী উপলক্ষে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ৭ বীরশ্রেষ্ঠ’র ম্যুরাল উন্মোচন করেন প্রধান অতিথি শিক্ষা সচিব মাহবুব হোসেন।