যে কোনমূল্যে ঘেরাও লংমার্চ ও রোডমার্চ কর্মসুচীসফল করা হবে– মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম

বরিশাল টু-ডে ॥ সংবিধানের মূলনীতিতে “আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস পুনবর্হাল”, আল্লাহ ও রাসূল সা.-এর দুশমন নাস্তিক-মুরতাদদের শাস্তির আইন পাশ, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন, সুশাসন, ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা, সন্ত্রাস-দুর্নীতির মূলোৎপাটন, দেশের স্থায়ী শান্তি ও মানবতার সার্বিক মুক্তি ও সমৃদ্ধশালী কল্যাণ রাষ্ট্র গঠনের নিমিত্তে ইসলামী শাসনতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে- ২৯ মার্চের জাতীয় মহাসমাবেশ থেকে ঘোষিত আগামী ১৯-২০ এপ্রিল যশোর-কুয়াকাটা রোড মার্চ, ২৫ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাও এবং আগামী ৯-১১ মে মিয়ানমার অভিমুখে লংমার্চ, ১৬-১৮ মে ঢাকা-ভুরঙ্গামারী এবং ৭-৮ জুন ঢাকা-সিলেট রোডমার্চ সফলে প্রস্তুতি পর্যালোচনা সভায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর প্রেসিডিয়াম সদস্য মুফতী সৈয়দ মোঃ ফয়জুল করীম বলেছেন, ঘোষিত কর্মসূচী যে কোন মূল্যে সফল করা হবে।

সরকার এতে বাধা সৃষ্টি করলে ইসলামী জনতা সমুচিত জবাব দিবে। তিনি বলেন, ইসলামী আন্দোলন কোন গতানগতিক রাজনীতি করে না। এদেশে ইসলামী শাসন ব্যভস্থা প্রতিষ্ঠা করাই এর মূল লক্ষ্য। এজন্য ক্ষমতা কেন্দ্রিক কোন জোট বা মহাজোটে বিশ্বাস করে না এ সংগঠন। “নো আওয়ামী লীগ, নো বিএনপি, ইসলাম ইজ দ্যা বেস্ট” এই নীতিতে উদ্ধুদ্ধ হয়ে আল্লাহর জমিনে দীন বিজয়ী করার মিশন নিয়ে কাজ করছে।

 তিনি বলেন, দেশ স্বাধীনের ৪২ বছর অতিবাহিত হলেও দেশের মানুষ আজও পরাধীনতার জিঞ্জিরে আবদ্ধ। ন্যায়ের শাসন, সুবিচার প্রতিষ্ঠা, অর্থনৈতিক মুক্তি, স্বনির্ভর রাষ্ট্র গঠন, গণমানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণ আজও বাস্তবায়ন হয়নি। পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধা, বীরাঙ্গনাকে পেটের দায়ে ভিক্ষার ঝুলি হাতে নিতে হচ্ছে। এজন্যই কি দেশকে স্বাধীন করা হয়েছিল? সরকারী ও বিরোধী দলের স্বাধীনতা দিবসের নানা কর্মসূচী পালনের লৌকিকতা দেখে নির্যাতিত মজলুম দেশবাসী বিস্মিত।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ আয়োজিত কর্মসূচী প্রস্তুতি পর্যালোচনা করতে বাস্তবায়ন কেন্দ্রীয় কমিটির এক জরুরী সভা আজ বিকেলে পল্টনস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। মুফতী সৈয়দ মোঃ ফয়জুল করীম-এর সভাপতিত্বে বৈঠকে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মহাসাচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, সহকারী মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, অধ্যাপক মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, মাওলানা আহমাদ  আব্দুল কাইয়ুম, কে এম আতিকুর রহমান, এড. আব্দুল মতিন, মুফতী হেমায়েতুল্লাহ, আলহাজ্ব আবু সাঈদ সিদ্দীকি, মাওলানা আতাউর রহমান আরেফী, মাওলানা নেছার উদ্দিন।