উজিরপুর উপজেলা আ’লীগের সংবাদ সম্মেলন সাংসদ মনি দূর্নীতির মাধ্যমে আখের গুছিয়েছেন

বরিশাল টু-ডে ॥ বরিশালের উজিরপুর উপজেলা আ’লীগের এক সাংবাদিক সম্মেলনে দলের শীর্ষ নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেছেন বরিশাল-২ আসন উজিরপুর-বানারীপাড়ার এমপি মনিরুল ইসলাম মনি ও তার পুত্র রিয়াজুল ইসলাম ঘুষ ও দূর্নীতির মাধ্যমে নিজেদের আখের গুছিয়ে এখন দল আ’লীগ ধ্বংস করার পায়তারা করছেন। তার প্রতিবাদ করায় প্রায় জনবিচ্ছিন্ন এমপি মনি ও তার পুত্রের নিজস্ব ক্যাডার বাহিনী দিয়ে দলের কান্ডারী ও নেতৃত্বে থাকা শীর্ষ নেতাদের হামলা, মামলা করে নিজের অবস্থান ধরে রাখার জন্য মরণ কামড় দিচ্ছেন। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় উজিরপুর ডাকবাংলায় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য দেন উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এস,এম জামাল হোসেন। সভাপতি, সম্পাদক স্বাক্ষরিত চারপাতায় লিখিত বক্তব্যে বলেন দলের মধ্যে ঘাপটি মেরে থাকা আদর্শ বিরোধী চক্র দলকে ধ্বংসের জন্য মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী কর্মীরা আজকে দেশের এই দূর্যোগময় মুহুর্তে কুচক্রী আদর্শহীন অসাধু নীতিহীন চক্রের মুখোশ উন্মোচন করার জন্য সাংবাদিক সম্মেলনে কিছু বক্তব্য তুলে ধরেন। বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হটাৎ করে আসা বরিশাল-২ আসনের প্রার্থী মনিরুল ইসলাম মনিকে জয়যুক্ত করে শেখ হাসিনাকে আসনটি উপহার দেয়া হয়েছিল। সাংসদ মনি ও তার পুত্র রিয়াজুল ইসলাম দল ক্ষমতায় আসার পর দলের এক নেতাকে নিয়ে নির্বাচনোত্তর দলছুট আদর্শহীন কতিপয় স্বার্থান্বেষী ব্যক্তিকে নিয়ে টি,আর, কাবিখা, কাবিটা, গভীর নলকূপ ও ৪০ দিনের কর্মসূচীর অর্থ ও মালামাল আত্মসাৎ করে। প্রাইমারী স্কুলের পিওন কাম নাইট গার্ডের নিয়োগ বানিজ্যসহ সংশ্লিষ্ট সকল ক্ষেত্রে দূর্নীতির মহোৎসবে মেতে ওঠে। যার প্রতিবাদ করায় দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত উজিরপুর আ’লীগের ত্রাণকর্তা হিসেবে পরিচিত সাবেক সভাপতি আঃ খালেক আজাদ দলের নেতৃত্বে থাকা অবস্থায় এমপির ক্যাডার বাহিনীর হাতে প্রকাশ্যে হামলার শিকার হন। এ ছাড়াও বর্তমান সভাপতি এস,এম জামাল হোসেনসহ বহু নেতাকর্মীর প্রতি অমানবিক নির্যাতন চালায় সাংসদ মনির বাহিনী। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এস,এম জামাল হোসেন জানান, সাংসদ মনিরুল ইসলাম মনি বর্তমানে জনগণের আস্তা হারানো ব্যক্তি। দলীয় নেতৃবৃন্দকে এড়িয়ে দলকে বিভক্ত ও দূর্বল করার মিশন নিয়েছে। তার অনুগত পুত্রসহ তার ক্যাডার বাহিনী সকল ক্ষেত্রে দূর্নীতির আশ্রয় গ্রহনের পাশাপাশি উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিদ সিকদার বাচ্চুসহ দলের নেতা কর্মীর বিরুদ্ধে দল স্বার্থবিরোধী কাজে লিপ্ত থাকা ও এমপির ক্যাডার হিসেবে পরিচিত আসাদ হাওলাদারকে দিয়ে মিথ্যা মামলা দায়ের করিয়ে নিজেকে রাজনৈতিক দেউলিয়া প্রমান করেছেন। শিঘ্রই দলের নাম ব্যবহারকারী সন্ত্রাসী ও টেন্ডারবাজদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আ’লীগের সম্পাদক আঃ মজিদ সিকদার বাচ্চু, সহ- সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল, সহ-সভাপতি অশোক কুমার হাওলাদার, হাকিম সন্যামত, সাংগঠনিক সম্পাদক রইসুল ইসলাম রিয়ন, সফিকুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক দিপু সিকদার, প্রচার সম্পাদক খবির উদ্দিন, যুবলীগ সভাপতি গিয়াস উদ্দিন, সম্পাদক হেমায়েত উদ্দিন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কামাল হোসেন সবুজ, ছাত্রলীগের সভাপতি আনিচুর রহমান নয়ন, শ্রমিক লীগের আহবায়ক আনোয়ার হোসেন খান, যুগ্ম আহবায়ক শিপন মোল্লা প্রমূখ।