উপকূলীয় এলাকার উন্নয়নে বিশ^ব্যাংকের ৩ হাজার ২শ’ ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন কার্যক্রম চলছে — পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী

পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম এমপি বলেছেন, ‘আগামী বছরের বন্যার জন্য আগাম প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। এ জন্য পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের ১০৬টি প্রকল্প চলমান আছে। এগুলো বাস্তবায়ন হলে দেশে নদী ভাংগনের ভয়াবহতা সহনীয় হবে’ বলে মন্তব্য করেন তিনি। শনিবার দুপুরে বরিশাল সদর উপজেলার চন্দ্রমোহন ইউনিয়নের আড়িয়ালখাঁ নদীর ভাংগন পরিদর্শন করেন। এছাড়া চন্দ্রমোহন দাখিল মাদ্রাসা ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ও চন্দ্রমোহন ৬৯নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নতুন ভবন শুভ উদ্বোধন কালে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী। প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, উপকূলীয় এলাকার উন্নয়নে বিশ^ব্যাংকের ৩ হাজার ২শ’ ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন কার্যক্রম চলছে। গত বছর আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থ সাতক্ষীরার ৩টি বেরী বাঁধ সংস্কার প্রকল্প একনেকে পাশ হলে শিঘ্রই কার্যক্রম শুরু হবে। এসব প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত হলে সাতক্ষীরার ক্ষতিগ্রস্থ মানুষ আগামীতে বন্যা থেকে রক্ষা পাবে। উপকূলীয় এলাকার নদী ভাংগনের ভয়াবহতা কমবে। বড় নদীগুলো ড্রেজিং করে পানি প্রবাহ স্বাভাবিক রাখা হবে। পরিদর্শনকালে বরিশাল পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. সফিউদ্দিন, নির্বাহী প্রকৌশলী দিপক রঞ্জন শীল, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মুনিবুর রহমান সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় প্রতিমন্ত্রী আড়িয়ালখাঁ নদীর ভাংগনের কবল থেকে চন্দ্রমোহনবাসীকে রক্ষায় কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।