ঐতিহাসিক বাংলা মোড়ে ইসলামী আন্দোলনের জাতীয় মহাসমাবেশে পীর সাহেব চরমোনাই ২৫ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাও

বরিশাল টু-ডে ডেক্স ॥ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর উদ্যোগে সংবিধানের মূলনীতিতে “আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস পুনবর্হাল”, আল্লাহ ও রাসূল সা.-এর দুশমন নাস্তিক-মুরতাদদের শাস্তির আইন পাশ, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন, সুশাসন, ন্যায়বিচার, সুন্ত্রাস-দুর্নীতির মূলোৎপাটন, দেশের স্থায়ী শান্তি ও মানবতার সার্বিক মুক্তি ও সমৃদ্ধশালী কল্যাণ রাষ্ট্র গঠনের নিমিত্তে ইসলামী শাসনতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে- ঐতিহাসিক দৈনিক বাংলা মোড়ে জাতীয় মহাসমাবেশ চলছে। দুপুরে সহাসমাবেশে রাজধানীর মতিঝিল শাপলা চত্বর এলাকায় পাঁচ দফা দাবিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র চলমান মহাসমাবেশ শুরু হয়।  সমাবেশে সংগঠনের আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই নতুন কর্মসূচী ঘোষণা করেন। নতুন ঘোষিত কর্মসূচী অনুযায়ী  আগামী ৫ এপ্রিলের মধ্যে ‘নাস্তিক’ ব্লগারদের গ্রেপ্তারের উদ্যোগ না নেয়া হলে ৬ মার্চ হেফাজতে ইসলামীর ডাকে ঢাকামুখী যে লং মার্চ আছে তাতে সমর্থন জানানো হবে। ইসলাম অবমাননাকারীদের শাস্তির আইন করার দাবি জানান তিনি। এ দাবিতে আগামী ২৫ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ঘেরাওয়ের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। মিয়ানমারে মুসলিমদের ওপর হত্যা, নির্যাতনের প্রতিবাদ জানায় ইসলামী আন্দোলন। মিয়ানমারে মুসলিমদের ওপর ‘গণহত্যা’ চালানো হচ্ছে এবং সেখানে মসজিদ ও মুসলিমদের বাড়ি-ঘর পুড়িয়ে দেয়া হচ্ছে অভিযোগ করে এর প্রতিবাদে আগামী ৪ এপ্রিল জাতিসংঘ কার্যালয়ে স্মারকলিপি দেবে দলটি। মুসলিমদের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদে আগামী ৮ ও ৯ মে মিয়ানমার অভিমুখে লং মার্চের ঘোষণা দিয়েছে তারা। সৈয়দ রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে বেলা ২টায় এই সমাবেশ শুরু হয়। সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই। সমাবেশে বরিশাল, মানিকগঞ্জ, টাঙ্গাইল, গাজীপুর, কুমিল্লা, ভৈরবসহ আশেপাশের অন্যান্য জেলা থেকেও মুসল্লিরা দুপুর থেকেই সমবেত হয়।
সমাবেশকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে। পুলিশ ও র‌্যাবের  পক্ষ থেকে দৈনিক বাংলা মোড়ে বসানো হয়েছে আর্চওয়ে। মহাসমাবেশকে ঘিরে সকাল থেকে বাইতুল মোকাররম এলাকা থেকে শুরু করে, আরামবাগ, ইত্তেফাক মোড়সহ বেশ কয়েকটি রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়।