চালু হচ্ছে শেবাচিম হাসপাতালের বন্ধ থাকা বার্ন ইউনিট

অবশেষে চালু হতে যাচ্ছে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের বার্ন ইউনিট। দীর্ঘ প্রায় দুই বছর চিকিৎসক সংকটে বন্ধ ছিলো বার্ন ইউনিটটি। তবে মঙ্গলবার এই হাসপাতালের জন্য একজন জুনিয়র কনসালটেন্ট নিয়োগ দেয়া হয়েছে। বুধবার সকালে তিনি হাসপাতালে যোগদান করেন। হাসপাতালে যোগদানকারি চিকিৎসক শরিফুল ইসলাম শেখ হাসিনা বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি হাসপাতাল থেকে এসেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি নিজেই। বর্তমানে তিনি হাসপাতালের চক্ষু বিভাগে ভর্তিরত অভিযান ১০ লঞ্চে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় দগ্ধদের চিকিৎসায় নিয়োজিত হন। শরিফুল ইসলাম জানিয়েছেন, যে রোগীরা এখানে রয়েছে তারা সকলেই শংকামুক্ত। বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এইচ এম সাইফুল ইসলাম বলেন, বার্ন ইউনিট চালু করতে হলে কনসালটেন্ট এর সাথে ২ থেকে ৩ জন মেডিকেল অফিসার ও প্রয়োজনীয় সংখ্যক নার্স প্রয়োজন। তারপরও কনসালটেন্ট যোগদান করেছে এবং দ্রুত ইউনিট চালু করা হবে। বার্ন ইউনিট খুলে সব কিছু ঠিকঠাক করে চালু করার প্রস্তুতি নিয়েছি। ২০ বেড দিয়ে চালু করবো এই ইউনিট।
প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে এই বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারী ইউনিট চালু করা হয়। ২০২০ সালে ইউনিটটি বন্ধ হয়ে যায়। ৫ বছরে ৫ হাজারেরও বেশি রোগী চিকিৎসা নিয়েছে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এই বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারী ইউনিটে।