চৌম্বক পাহাড়

রেশমা ইয়াসমিন ॥ পৃথিবীতে এমন কিছু সড়ক রয়েছে যেখানে গেলে যেকোনো ব্যক্তিই বিস্মিত হবেন। প্রতিদিন এসব সড়কে অস্বাভাবিক যে ঘটনা ঘটে যাচ্ছে তাতে বিস্মিত হওয়াটাই স্বাভাবিক। কখনো সোজা বা কখনো আঁকাবাঁকা হয়ে সড়কগুলোকে দেখা যাবে ওপরের দিকে উঠে যেতে। আপাতদৃষ্টিতে দেখে এ সড়কগুলোকে অন্য আর দশটা সড়কের থেকে আলাদা ভাবার কোনো কারণই নেই। তবে রহস্যের শুরুটা হয় সড়কগুলোতে চলতে শুরু করলেই। গাড়িগুলো এসব সড়কে ইঞ্জিনের সাহায্য ছাড়াই আপনাআপনিই ওপরের দিকে উঠতে থাকে। শুধু গাড়ি নয়, বল বা পানিও দেখা যাবে নিচের দিকে না নেমে যাচ্ছে ওপরের দিকে। সাধারণভাবে দেখে মনে হতেই পারে প্রকৃতির নিয়ম বা মাধ্যাকর্ষণ শক্তি হয়তো এসব স্থানে কার্যকর নয়। পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে খুঁজে পাওয়া যাবে এ ধরনের সড়কগুলো। এ সড়কগুলো চৌম্বক পাহাড়, মাধ্যাকর্ষণ পাহাড়, রহস্য পাহাড় প্রভৃতি নামে পরিচিত। সড়কগুলোতে ঘটে যাওয়া এ ঘটনার পেছনে চৌম্বকক্ষেত্র বা অতিপ্রাকৃতিক শক্তির হাত আছে বলেও ধারণা করেন অনেকে। তবে বিজ্ঞানীরা বলেন, একেবারেই ভিন্ন কথা। তাঁদের মতে, এ ধরনের সড়কগুলো দেখে মনে হয় তা ওপরের দিকে উঠে গেছে, আসলে তা ওপরের দিকে তো ওঠেইনি বরং নেমে গেছে নিচের দিকে। দৃষ্টিভ্রমের কারণে মানুষ যেমন মরীচিকা দেখে ঠিক তেমনই নিচের দিকে নামা এ সড়কগুলোকে মানুষ ওপরের দিকে উঠতে দেখে। আর তাতেই জন্ম নেয় রহস্য। যেহেতু সড়কগুলো নিচের দিকে নেমে গেছে তাই মাধ্যাকর্ষণ শক্তির প্রভাবেই গাড়িগুলো নিচের দিকে নেমে যায়। এ ধরনের দৃষ্টিভ্রমের জন্য বিজ্ঞানীরা সড়কগুলোর আশপাশের দৃশ্যগুলোকেই দায়ী করে থাকেন। সড়কের পাশের গাছগুলোর অবস্থান, দুই পাশের দৃশ্যের ঢাল, বাধাপ্রাপ্ত বক্র দিগন্তরেখা ইত্যাদি কারণেই মানুষ বাস্তবের অনেকটা উল্টো চিত্র দেখে এ সড়কগুলোতে। পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে এ ধরনের সড়কগুলোর উচ্চতা পরিমাপ করেও বিজ্ঞানীরা প্রমাণ পেয়েছেন যে সড়কগুলো দেখে ওপরের দিকে উঠছে মনে হলেও আসলে তা নিচের দিকে নেমে গেছে।