দূর্নীতি প্রতিরোধে জিরো টলারেন্স থাকবো —- প্রানীসম্পদ মন্ত্রী শ.ম. রেজাউল

মৎস্য ও প্রানীসম্পদ মন্ত্রী শ.ম. রেজাউল করিম বলেছেন, প্রাকৃতিক সম্পদের অপার সম্ভাবনাময় বরিশাল এলাকায় প্রাণী সম্পদের ভান্ডার গড়ে তোলা হবে। প্রয়োজনে এখান থেকে বিদেশে মাংস রপ্তানী করা হবে। এখানে আমরা সরকারি সহযোগিতায় গবেষনা কেন্দ্র করা হয়েছে, যেখান থেকে বেকার ছেলে-মেয়েরা ডিপ্লোমা শেষ করার পূর্বে চাকুরীতে যোগদান করার মাধ্যমে তাদের বেকারত্ব, দারিদ্রতা দূর করে স্বাবলম্বি হয়ে ঘুড়ে দাঁড়াবে। এখানকার কোন উন্নয়নমূলক কাজে কেউ প্রতিকূলতা বাঁধার সৃষ্টি করতে এলে আমরা গুন্ডামি, দূর্নীতি প্রতিরোধে জিরো টলারেন্স থাকবো। তারপরেও কেউ যদি এসব কাজে জড়িয়ে পড়ে তাহলে তাদের জন্য কঠিন ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। গতকাল শনিবার দুপুরে বরিশাল নগরীর কাশিপুরে সরকারি ছাগল উন্নয়ন খামার উদ্বোধন এবং ব্লাক বেঙ্গল জাতের শ্রেষ্ঠ খামারি ও পাঁঠা পালনকারীদের উপকরণ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের পূর্বে প্রধান অতিথি প্রাণি সম্পদ মন্ত্রী শ.ম. রেজাউল করিম সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এই কথা বলেন। মন্ত্রী আরও বলেন, আজ বাংলাদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্রের দিকে নিয়ে যাবার নেতৃত্ব দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। আমার গ্রামের সাধারন মানুষকে সুদমুক্ত ঋন দিয়ে বেকারত্ব দূর করার প্রকল্প গ্রহন করেছি। বরিশালে একটি চিড়িয়াখানা নির্মাণের পাশাপাশি মহিষ গবেষনা কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে এবং বরিশালেই হবে বড় খামার।
বরিশাল জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পানিসম্পদ প্রতি মন্ত্রী কর্ণেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. আব্দুল মালেক, বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার অমিতাভ সরকার, বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস। এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন, ব্লাক বেঙ্গল জাতের ছাগল উন্নয়ন প্রকল্প পরিচালক মো. শরিফুল হক ও প্রানিসম্পদ অধিদপ্তরের বরিশাল বিভাগীয় উপ-পরিচালক ডা. কানাই লাল স্বর্ণকার। পরে বিভিন্ন খামারীদের মাঝে উপকরন তুলে দেন মন্ত্রী শ.ম. রেজাউল করিম। এর পূর্বে তিনি ফলক উম্মোচন ও দোয়া-মোনাজাতের মাধ্যমে প্রকল্পের উদ্বোধন করে বিভিন্ন খামারের শেড পরিদর্শন করে সকল কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে।