দ্বিতীয় দিনের হরতালে বরিশালে পুলিশসহ আহত ৩

বরিশাল টুডে ॥  জামায়াতের ডাকা টানা ৪৮ ঘণ্টা হরতালের শেষ দিন বুধবার ভোর থেকে বরিশাল নগরীর বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ ও পিকেটিংয়ের চেষ্টা করেছে শিবির কর্মীরা। এসময় পুলিশ তাদের ধাওয়া করলে শিবির কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে পুলিশ সদস্যসহ তিনজন আহত হন। ভোর সাড়ে ৫টার দিকে নগরীর রূপাতলী পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

সকাল ৬টার দিকে নগরীর গড়িয়ার পাড়ে গাছের গুঁড়ি ফেলে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে শিবিরের একটি দল। প্রায় একই সময়ে নগরীর কাশীপুর এলাকায় ঝটিকা বিক্ষোভ মিছিল বের করে তারা। এসময় পুলিশ তাদের ধাওয়া করলে হরতাল সমর্থকরা পুলিশকে লক্ষ করে ইট-পাটকেল ছুড়তে ছুড়তে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এদিকে, ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ শিবির কর্মীদের ব্যবহৃত সাতটি বাইসাইকেল নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছেন মহানগর শিবির সভাপতি আবদুল্লাহ-আল নাহিয়ান। নগরীর কাউনিয়া বিসিক এলাকায়ও গাছের গুঁড়ি ফেলে ও টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে শিবির কর্মীরা। নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যান (বেলস্পার্ক) এলাকায়ও পিকেটিংয়ের চেষ্টা করে হরতাল সমর্থকরা। সকাল পৌনে ৮টার দিকে নগরীর এম এ জলিল সড়কের (নবগ্রাম রোড) করিম কুটির এলাকায় একটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় হরতাল সমর্থকরা। এসময় অবিস্ফোরিত একটি ককটেল উদ্ধার করে পুলিশ। এছাড়া সকাল ১১টার পর্যন্ত জেলার কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার টিএম মোজাহিদুল ইসলাম জানান, ইট-পাটকেলের আঘাতে নয়, দ্রুত গাড়িতে উঠতে গিয়ে এক পুলিশ সদস্য সামান্য ব্যথা পেয়েছেন। এছাড়া সব কিছুই স্বভাবিক রয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

অপরদিকে, নগরীর দু’টি বাস টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লা ও অভ্যন্তরীণ রুটের বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। নগরী থেকে উপজেলা শহরে হালকা কিছু যানবাহন চলাচল করছে। অভ্যন্তরীণ রুটে লঞ্চ চলাচল করলেও যাত্রী তুলনামূলক কম। এদিকে, পুলিশ জানায়, হরতাল সমর্থকদের যে কোনো অপতৎপরতা ঠেকাতে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পাশাপাশি র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ও পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে।