প্রয়োজনীয় টিপস ।। ঈদের দিনের রান্নাঘর

রেশমা ইয়াসমিন ।।
ঈদুল আযহা মানেই মাংস আর মাংস আর মাংসের রকমারি আইটেম। এ দিনের  আনন্দ মোটামুটি মাংস আর  রান্নাঘর কেন্দ্রিক। কারণ এখানেই রান্না  হবে মজার মজার সব আইটেম। কুরবানির আর বেশী দিন বাকী নেই। কাজেই এরই মাঝে গুছিয়ে নিন আপনার রান্নাঘর। আপনার কাজে লাগতে পারে ভেবে তাই বেশ কিছু টিপস দেওয়া হলো-
১. রান্নাঘর পরিষ্কার করুন।
২. বড় হাঁড়ি পাতিল হাতের কাছে গুছিয়ে রাখুন যেন তা রান্নার সময় পাওয়া যায়।
৩. বটি, ছুরি আগেই ধার দিয়ে নিন ।
৪. মসলার পাত্র, তাক সব পরিষ্কার করে রাখুন।
৫. প্রয়োজনেই হাতের নাগালে পেতে মসলার পাত্রের গায়ে মসলার নাম লিখে রাখুন।
৬. ঈদের দিনের কাজের চাপ কমাতে কিছু বিশেষ রান্না যেমন জর্দা ফিরনী, আগেই করে ফ্রিজে রেখে দিন।
৭. ফ্রিজে যতটা সম্ভব জায়গা খালি করে পরিষ্কার করে রাখুন, তাতে কুরবানির মাংস সংরক্ষণে ঝামেলায় পড়তে হবে না।
৮. ঈদের আগেই কিছু বিভিন্ন সাইজের পলিথিন ব্যাগ কিনে রাখুন।
৯. ঈদের দিনে রান্নার ঝামেলা কমানোর জন্য আগের দিনই  মসলা ব্লেন্ড করে ফ্রিজে রেখে দিন ।
১০. ঈদের আগেই চেক করে নিন প্লেট গ্লাস, বাটি,  চামচ সব সেট মেলানো আর গোছানো আছে কিনা।
১১. শোকেস আর কিচেন কেবিনেট থেকে সব কিছু বের করে ধুয়ে পরিষ্কার করে গুছিয়ে রাখুন।
১২. মাংস রান্না করার সময় এ থেকে নিঃসৃত চর্বি, রক্ত ইত্যাদি আপনার রান্নাঘর দুর্গন্ধময় করে তুলতে পারে। তাই রান্না শেষ করার পর  মাংস কাটা ও রাখার স্থান ভালো করে ডিটারজেন্ট পাউডার দিয়ে পরিষ্কার করে ফেলুন। রান্নাঘরের মেঝে জীবানুনাশক লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
এখন আর দেরি না করে গুছিয়ে ফেলুন আপনার রান্নাঘর। তাতে আপনার ঝক্কিই শুধু কমবে না বরং আপনি ঈদের দিন মোটামুটি রিল্যাক্সড মুডে থাকতে পারবেন।