বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলায় বাবাকে হত্যার দায়ে রেজাউল মোল্লা নামে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। একই সাথে দন্ডপ্রাপ্ত রেজাউলকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১ বছরের দন্ডদেশ দেয়া হয়েছে। বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সিনিয়র জেলা জজ মো. রফিকুল ইসলাম মঙ্গলবার বিকেলে আসামী রেজাউলের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন। দন্ডপ্রাপ্ত রেজাউল মোল্লা আগৈলঝাড়া উপজেলার আস্কর কালীবাড়ি গ্রামের নিহত সত্তার মোল্লার ছেলে। জেলা জজ আদালতের বেঞ্চ সহকারী হেদায়াতুন্নবী জাকির মামলার উদ্বৃতি দিয়ে জানান, বাদীর স্বামী সত্তার মোল্লার আগের স্ত্রীর ঔরসে রেজাউল সহ ৩ ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। সত্তার তাকে বিয়ে করার তাদের একটি পুত্র সন্তান হয়। কিন্তু রেজাউল কোনভাবেই তার বাবার দ্বিতীয় বিয়ে মেনে নিতে পারেনি। সে প্রায়ই সে তার বাবা ও সৎ মাকে (রুমা) শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো।
উল্লেখ্য, গত ২০১৭ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর রাত ১০ টার দিকে রেজাউল তার বাবাকে ডাকতে থাকে। সত্তার দরজা খুলে সামনে গেলেই ধারালো দা দিয়ে তাকে এলোপাথাড়ি কোপায় রেজাউল। রুমা বাঁধা দিতে গেলে তাকেও হত্যার করতে উদ্যত হয় সে। তার ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে রেজাউল পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা সত্তারকে উদ্ধার করে আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এ ঘটনায় ২০১৭ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর রেজাউলকে আসামী করে আগৈলঝাড়া থানায় মামলা দায়ের করেন সত্তারের ২য় স্ত্রী রুমা বেগম। থানার এসআই মোশাররফ হোসেন ২০১৮ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারী রেজাউলের বিরুদ্ধে আদালতে এই মামলার অভিযোগপত্র দেন। আদালতে ১৬ জনের মধ্যে ১৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহন শেষে দোষী হত্যার অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় রেজাউল মোল্লাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেন বিচারক। রাস্ট্রপক্ষে পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর এবং আসামী পক্ষে অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির মাসউদ মামলা পরিচালনা করেন।