বরিশালের শেফা ডায়গনষ্টিক ল্যাব বন্ধের নির্দেশ

বরিশাল টুডে ॥ নগরীর বহুল আলোচিত শেফা ডায়গনষ্টিক ল্যাব বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। ঐ ল্যাবের মালিক শাহীন ওরফে ঝাড়–দার শাহীন ও তার সহযোগীদের নির্যাতনে গত ২১ জুন চিকিৎসক আরিফুর রহমানের মৃত্যু হয়। মালিক পক্ষের হুমকির মুখে নিহত চিকিৎসকের পরিবার মুন্সীগঞ্জ থেকে বরিশালে এসে মামলা দায়ের করতে পারেনি বলে চিকিৎসক নেতারা অভিযোগ করে আসছেন। ডাঃ আরিফের মৃত্যুকে শুরু থেকেই অপমৃত্যু হিসাবে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে ল্যাব মালিক ও থানা পুলিশ। ময়না তদন্তে হত্যার আলামত পাওয়ার পর চিকিৎসকদের সংগঠন বিএমএ এবং স্বাচিপ যৌথ ভাবে আন্দোলনে নামেন।

ঘটনার পর ল্যাব বন্ধ করে দিয়ে মাত্র এক সপ্তাহ পালিয়ে ছিল শাহীন।  পরে থানা পুলিশকে ম্যানেজ করে পুনরায় ল্যাব খুলে ব্যবসা শুরু করে অভিযুক্ত শাহীণ ও তার সহযোগীরা।   এতে চিকিৎসকদের মাঝে চরম ক্ষোভের সঞ্চার হয়। তারা চিকিৎসক আরিফ হত্যার অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য রবিবার ৭ দিনের আল্টিমেটাম দিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রী, বিভাগীয় কমিশনার, স্বাস্থ্য পরিচালক সহ উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের কাছে আরিফ হত্যার বিচার ও চিকিৎসকদের নিরাপত্তা প্রদানের দাবী জানান।

আজ সোমবার বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ও সিভিল সার্জন যৌথ ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ল্যাবটি সিলগালা করার জন্য। সিভিল সার্জন ডাঃ এটিএম মিজানুর রহমান এ তথ্যের সত্যতা স্বীকার করে জানান- ঐ ল্যাবটির কোন বৈধ কাগজ পত্র ছিল না। সেখানে মাদক বিক্রি সহ নানান অসামাজিক কার্যক্রম চলতে বলে তারা অনুসন্ধান চালিয়ে জানতে পেরেছেন। চিকিৎসক হত্যাকান্ডের বিষয়টি পুলিশ সুরাহা করবে বলে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। তারা জেলা প্রশাসনের কাছে ম্যাজিষ্ট্রেট চেয়েছেন। ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়ে অভিযান চালিয়ে অবৈধ ঐ ডায়গনষ্টিক সেন্টারটি বন্ধ করে দেওয়ার কথা জানান সিভিল সার্জন।