বরিশালে অসহায়-দুঃস্থ ছিন্নমূলদের মাঝে সাংবাদিকদের খাবার বিতরন

বরিশালে চলমান লকডাউনে এই প্রথম অসহায়-দুঃস্থ ও ছিন্নমূল মানুষের মাঝে খাবার বিতরন করেছেন সাংবাদিকরা। লকডাউনের ৭ম দিন এই খাবার পেয়ে খুশী তারা। লকডাউন চলাকালে প্রতিদিন এভাবে খাবার দেয়ার দাবী করেছেন তারা। প্রতিদিন দুঃস্থদের মাঝে সাধ্যমতো খাবার দেয়ার কথা বলেছেন সাংবাদিক নেতারা। মঙ্গলবার রাত ৯টায় নগরীর নদী বন্দরে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে দুঃস্থদের মাঝে খাবার বিতরনের উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। এ সময় তিনি বলেন, করোনা মহামারীতে দুঃস্থ মানুষের মাঝে খাবার বিতরনের উদ্যোগে প্রসংশনীয়। সমাজের স্বচ্ছল ব্যক্তিরা এভাবে এগিয়ে আসলে দুস্থরা উপকৃত হবে। উদ্বোধনের পর প্রায় ২শ’ অসহায়-দুঃস্থ ও ছিন্নমূল মানুষের মাঝে রান্না করা প্যাকেট খাবার বিতরন করা হয়। খাবারের মধ্যে ছিলো খিচুরী এবং ডিম। নদী বন্দরের টার্মিনালে সারিবদ্ধভাবে বসে খাবার গ্রহন করেন দুঃস্থরা। খাবার পেয়ে দুঃস্থরা বলেন, লকডাউনে কেউ তাদের খবর নেয়নি। খাবার পেয়ে তারা অনেক খুশী। লকডাউনকালীন সময়ে খাবার বিতরন অব্যাহত রাখার দাবী জানিয়েছেন তারা। বরিশালের সাংবাদিক নেতা ও প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক এসএমস জাকির হোসেন বলেন, গত বছর করোনকালে একইভাবে নদী বন্দরের ছিন্নমূল ও দুঃস্থদের মাঝে খাবার দেয়া হয়েছিলো। চলতি লকডাউনের মেয়াদ বাড়ায় দুঃস্থদের অসহায়ত্বের কথা চিন্তা করে মঙ্গলবার রাত থেকে খাবার বিতরন শুরু করেন তারা। লকডাউনকালীন প্রতিদিন রাতে তাদের খাবার দেয়া হবে। বিত্তবান যে কেউ চাইলে দুঃস্থদের খাবার বিতরনে অংশ নিতে পারে বলে তিনি জানান।