বরিশালে অস্ত্রসহ ১৪ জলদস্যুর আত্মসমর্পণ সব দস্যুকে স্বাভাবিক জীবনে ফেরার আহ্বান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ ১৪ জন জলদস্যু গতকাল বৃহস্পতিবার বরিশাল র্যাব-৮ এর কার্যালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন। এদের মধ্যে ছিলেন শান্ত বাহিনীর প্রধান আব্দুল বারেক তালুকদার ওরফে শান্ত ও আলম বাহিনীর প্রধান আলম সরদার। এসময় ৯টি বিদেশি একনালা বন্দুক, ২টি বিদেশি দোনালা বন্দুক, ৫টি .২২ বোর বিদেশি রাইফেল, ২টি ওয়ানশুটার গান এবং ২টি কাটা রাইফেলসহ মোট ২০টি দেশি-বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র এবং ১০০৮ রাউন্ড গোলাবারুদ তারা জমা দেন।

 

জলদস্যুদের আত্মসমর্পণের পর এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জলদস্যুদের এই পেশা ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফেরার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, যে জলদস্যুরা গুরুত্বর অপরাধ করেননি তাদের বিষয়ে ভাবা হচ্ছে। যেসব জলদস্যু আত্মসমর্পণ করেছেন তাদের স্বাবলম্বী করার চেষ্টা করছি। এ অঞ্চলে নিরাপত্তায় আমরা আমাদের বাহিনীগুলোকে আরো শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কাজ করছি।

 

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় র্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহম্মেদ বলেন, ইতিপূর্বে স্বাভাবিক এবং সুস্থ জীবন-যাপনে ফিরতে কয়েকটি জলদস্যু এবং বনদস্যু বাহিনী আত্মসমর্পণ করেছে। জলদস্যুদের বাকি ৪টি বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানাবো তারাও যেন আমাদের কাছে আত্মসমর্পণ করেন। র্যাবের মুখোমুখি হলে বন্দুকের গুলি থেকে কোনো জলদস্যুই বেঁচে ফিরতে পারবেন না।

 

অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনূস এমপি, অ্যাডভোকেট টিপু সুলতান এমপি, র্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) আনোয়ার লতিফ খান, মুফতি মুহাম্মদ খান প্রমুখ এসময় উপস্থিত ছিলেন।