বরিশালে নার্সিং ইন্সটিটিউটের হোস্টেলে ভুত আতংকে চার ছাত্রী হাসপাতালে

বরিশালে রূপাতলীস্থ জম জম নার্সিং ইন্সটিটিউটের হোস্টেলে ভুত আতংকে চার ছাত্রী অজ্ঞান ও অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শুক্রবার রাত ১০টার দিকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে ভর্তিরত শিক্ষার্থীরা হচ্ছে বরিশাল নগরীর রূপাতলীস্থ জম জম নার্সিং ইন্সটিটিউটের দ্বিতীয় বর্ষের নার্সিং অনুষদের ছাত্রী জামিলা আক্তার, সেতু দাস, প্রথম বর্ষের ছাত্রী তামান্না ও বৈশাখী। জম জম নার্সিং ইন্সটিটিউটের নার্সিং ইন্সট্রাক্টর জালিস মাহমুদ জানান, কোনো কারনে ভয় পেয়ে ঐ চারজন ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। অসুস্থতারা জানিয়েছে তারা ভুত দেখেছে। আসলে বিষয়টা তেমন নয় জোড়ে বাতাসের শব্দে তারা হয়তো ভয় পেয়েছে। তাদের সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। শেবাচিম হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাৎক্ষনিক এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি।
স্থানীয় ও শিক্ষার্থীদের সূত্রে জানা গেছে জমজম ইন্সটিটিউটে পড়াশোনা করতে হলে বাধ্যতামূলক ভাবে নাসির্ং ও ম্যাটস অনুষদের ছাত্রীদের হোস্টেলে থাকার বিধান রয়েছে। ইনস্টিটিউটের পঞ্চম তলায় ম্যাটস এবং ষষ্ঠ তলায় নার্সিং অনুষদের ছাত্রীরা থাকে। সেখানে প্রায় ৩৫ জন ছাত্রী থাকলেও বেশ কয়েকজন ভুত আতংকের কথা কর্তৃপক্ষকে জানায়। বৃহস্পতিবার মিথিলা নামে এক ছাত্রীকে ভুত খামচি দেয় বলে সে সকলকে জানালে কর্তৃপক্ষ হুজুর এনে তেল ও পানি দেয়। কিন্তু শুক্রবার সন্ধ্যার পর জামিলা নামে এক ছাত্রীর বাম হাতে ভুত খামচি দেয় বলে সে জানালে হোস্টেলে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এরপর একে একে চারজন ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।