বরিশালে পুলিশের বিরুদ্ধে দুই সাংবাদিক পেটানোর অভিযোগ। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস পুলিশ কমিশনারের

করোনা সংক্রামন এড়াতে সরকারী প্রচার-প্রচারনার ছবি তুলতে গিয়ে শুক্রবার রাতে বরিশাল বিশ^বিদ্যালয়ের সামনে লাঠিপেটার শিকার হয় বরিশালের দুই ফটো সাংবাদিক। কোন কারন ছাড়াই ওই দুই ফটো সাংবাদিককে পেটানো হয় বলে তারা জানান। হামলার শিকার দুই ফটো সাংবাদিক হলেন আঞ্চলিক দৈনিক দেশ জনপদ পত্রিকার শাফিন আহমেদ রাতুল ও দৈনিক দক্ষিনের মুখ পত্রিকার নাসির উদ্দিন। রাতুল জানান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোশারেফ হোসেন গত শুক্রবার সন্ধ্যায় জনসচেতনতামূলক প্রচারনা চালাতে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় যান। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় পৌঁছার পর মাস্ক পরিহিত একজন পুলিশ সদস্য তাদের পরিচয় জানতে চান। তারা নিজেদের আঞ্চলিক দুটি দৈনিকের ফটো সাংবাদিক হিসেবে পরিচয় দেন। এরপরও ওই পুলিশ সদস্য তাদের বেদম লাঠিপেটা করেন। কর্মরত অবস্থায় ২ সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনায় তীব্র নিন্দা এবং একই সাথে অভিযুক্তদের শাস্তির দাবী জানান বরিশালের সাংবাদিকসহ সুশীল সমাজের নেতাকর্মিরা। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোশারেফ হোসেন জানান, তার সাথে পুলিশ ছিলো। কিন্তু তিনি কাউকে পেটাতে নির্দেশ দেননি। মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেন, বর্তমান সংকটময় পরিস্থিতিতে জনগনের সাথে ভাল ব্যবহার করে তাদের বুঝিয়ে-শুনিয়ে নিজ নিজ ঘরে রাখতে সকল পুলিশ সদস্যদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। শুধু সাংবািদক নয়, সাধারন জনগনের সাথে দুর্ব্যবহার করলেও সেটা কাম্য নয়। দুই সাংবাদিককে লাঠিপেটার খবর তিনি শুনেছেন। এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে তিনি আরও বলেন অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যদের সনাক্ত করে শাস্তির আওতায় আনা হবে।