বরিশালে বেওয়ারিশ কুকুরকে টিকা প্রদানের কার্যক্রম শুরু

বরিশাল টুডে ॥ বরিশাল  নগরী থেকে  জলাতঙ্ক রোগ নিমুর্লের লক্ষ্যে  ৩ হাজার কুকুরকে টিকা প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা হাতে নিয়েছে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগ।  বিসিসি’র ৪০ কাউন্সিলরসহ পরিছন্ন কর্মীরা এই কার্যক্রম সফল করতে বুধবার সকাল থেকে মাঠে নেমেছে সিটি কর্পোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগ। ১১ মে পর্যন্ত চলবে এই কার্যক্রম।
সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মতিউর রহমান জানান, কুকুরকে টিকা প্রদানের কর্মসুচির জন্য মাইক্রো প্লানিংয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এজন্য পরিছন্ন কর্মীদের কুকুর ধরে টিকা প্রদানের প্রশিক্ষন  দেওয়া  হবে। এছাড়া ৮ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত প্রতিদিন ভোর ৬টা থেকে দুপুর পর্যন্ত ১০টি করে ৩০ ওয়ার্ডে কুকুরকে টিকা প্রদান করা হবে। তিনি আরো বলেন, ১১ মে বাদ পড়া বাকি কুকুরগুলোকে টিকার আওতায় আনা হবে। এতে করে মে মাসের মধ্যেই বরিশাল নগরী জলাতঙ্ক মুক্ত হবে ।
বিসিসির স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে জানা গেছে, বাংলাদেশে প্রতি বছরে দুই হাজারেরও বেশঅ লোক  জলাতঙ্ক রোগে মারা যায়। জলাতঙ্ক  রোগ শতকরা ৯৯ ভাগই কুকুরের মাধ্যমে ছড়ায়। এ জন্য একসময় কুকুর নিধন পক্রিয়া চালু ছিলো। এর থেকে রেহাই পেতে একসময়  সরকারি উদ্যেগে স্ব স্ব জেলার সিভিল সার্জনসহ সিটি কিংবা পৌরসভায় ব্যায় বরাদ্দ ছিলো। কিন্তু কুকুর নিধন পক্রিয়া পরিবেশ বান্ধব নয় বলে বারবারই প্রতিবাদ করে আসছে প্রানী সম্পদ অধিদপ্তর। আরো জানাগেছে, গত আড়াই বছর ধরে জাতীয় জলাতঙ্ক নির্মূল কর্মসূচির অধিনে মোট ৫৮ টি জেলায় কুকুর ভ্যকসিন বা টিকা প্রদানের কার্যক্রম চলছে। ২০২০ সালের মধ্যে দেশ থেকে জলাতঙ্ক নির্মূল করার লক্ষ্য নির্ধারন করেছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়। এরই ধারাবাহিকতায় আজ থেকে নগরীতে কুকুরের ভ্যকসিন বা টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু করা হয়।