বরিশালে ৭ গ্রুপের টেন্ডার নিয়ে উত্তেজনা

বরিশাল টুডে ॥ বরিশালে ৭ গ্রুপের টেন্ডারের দরপত্র জমা দেয়াকে কেন্দ্র করে বুধবার সকালে যুব ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। খবর পেয়ে র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের ১৫ কোটি টাকার সাত গ্র“পের দরপত্র জমা দেয়ার শেষদিন ছিলো গতকাল বুধবার। সকাল দশটার দিকে দরপত্র জমা দেয়াকে কেন্দ্র করে জেলা ও মহানগর যুবলীগ এবং ছাত্রলীগের মধ্যে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। খবর পেয়ে র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার পর বেলা ১টার দিকে সাধারন ঠিকাদাররা তাদের দরপত্র জমা দেন। সাধারন ঠিকাদাররা অভিযোগ করেন, কর্তৃপক্ষ যাছাই বাছাইয়ে সময়ক্ষেপন করার মধ্যদিয়ে দলীয় লোকজনকে কাজ পাইয়ে দেয়ার ব্যবস্থা করছেন। তারা আরো অভিযোগ করেন, বুধবার দরপত্র জমা দেয়ার নির্ধারিত দিনে সকাল থেকেই কাজ বাগিয়ে নেয়ার জন্য জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা সাধারন ঠিকাদারদের বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতিসহ হুমকি প্রদর্শন করে। এনিয়ে ক্ষমতাসিন যুব ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে।
এলজিইডি বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ রুহুল আমিন খান বলেন, তারা যথার্থ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সুষ্ঠুভাবে বিষয়টির সমাধান করতে পেরেছেন। তিনি আরো জানান, সিসিআরপি এবং পিআরপি প্রকল্পের মাধ্যমে রাস্তা নির্মাণের জন্য গত ৮ মে ১৫ কোটি টাকার দরপত্র আহবান করা হয়। জেলার উজিরপুরে তিন ও বাবুগঞ্জ  উপজেলায় ৩ গ্র“প এবং বানারীপাড়া উপজেলায় ১ গ্র“প মিলিয়ে মোট ৭ গ্র“প কাজের জন্য ২৪৭টি দরপত্র বিক্রি হয়।
বিএমপি’র উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ গোলাম রউফ খান-পিপিএম জানান, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার পর কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই ঠিকাদাররা সুষ্ঠু ভাবে দরপত্র জমা দিয়েছেন।