বরিশাল শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন দুই জনের মৃত্যু ॥ নতুন সনাক্ত ২০

বরিশালে শনিবার দুপুর ২টা পর্যন্ত বিগত ২৪ ঘণ্টায় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের একজন করোনায় ও অন্যজন করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান। একই সময়ে বরিশাল বিভাগে ২০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। শনিবার দুপুরে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস ও শেবাচিম হাসপাতাল সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ডা. বাসুদেব কুমার দাস জানান, বিভাগে নতুন ২০ জন শনাক্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৯১২ জনে। এরমধ্যে বরিশাল জেলায় নতুন শনাক্ত হয়েছেন মাত্র একজন। জেলায় মোট সাত হাজার ১৬৯ জন, পটুয়াখালী জেলায় নতুন দুইজন নিয়ে মোট ২ হাজার ৩৪৩ জন, ভোলা জেলায় নতুন পাঁচজন নিয়ে মোট এক হাজার ৯৭১ জন, পিরোজপুর জেলায় নতুন ১২ জন নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার ৭৪৫ জনে পৌঁছেছে। এছাড়া বরগুনা ও ঝালকাঠি জেলায় নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হয়নি। ফলে পিরোজপুর জেলায় মোট শনাক্ত পূর্বের সংখ্যা এক হাজার ৩০৮ ও ঝালকাঠি জেলায় মোট এক হাজার ৩৭৬ জনেই অবস্থান করছে। তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘন্টায় বেতাগী পৌরসভা এলাকার বাসিন্দা আফজাল হোসেন (৪৫) করোনা আক্রান্ত হয়ে শেবাচিম হাসপাতলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন। এতে বিভাগে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৯০ জনে। মোট সুস্থ হয়েছেন ১৪ হাজার ১৭০ জন।
শেবাচিম হাসপাতাল পরিচালকের তথ্য সংরক্ষক সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘন্টায় শেবাচিমের করোনা ইউনিটে মোট পাঁচজন ভর্তি হয়েছেন। উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশনে ভর্তি একজন মারা গেছেন। করোনা ওয়ার্ডে বর্তমানে ৬২ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। চিকিৎসাধীন ব্যক্তিদের মধ্যে ১৪ জনের করোনা পজেটিভ এবং ৪৮ জন করোনার উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশনে রয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আরটি পিসিআর ল্যাবে মোট ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২২ দশমিক ৩৪ শতাংশ পজেটিভ এসেছে।