বরিশাল শেবাচিমে করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৫ জনের মৃত্যু

বরিশালে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ১ ও আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত বিগত ২৪ ঘন্টায় এ ৫ জনের মৃত্যু হয়। পাশাপাশি ওয়ার্ডে ভর্তি ১৫ জনের নমুনা পরিক্ষায় ৮ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ পাওয়া গেছে। ছাড়পত্র পেয়েছেন মাত্র ২ জন। ২৪ ঘন্টায় করোনা সন্দেহে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ২৫ জন ভর্তি হয়েছেন। গতকাল বুধবার বরিশাল শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতাল সূত্রে আরো জানা গেছে, করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২৬ জন। এছাড়া আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন ৯৩ জন। বুধবার পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে ১৪৬ ও আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৩৬১ জনসহ মোট ৫০৭ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। করোনা ও আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন ২৯ হাজার ১১ জন ব্যক্তি।
এদিকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধক ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ বুধবার সকালে বরিশালে পৌঁছেছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী বৃহস্পতিবার থেকে এই ভ্যাকসিনের প্রয়োগ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন বরিশালের সিভিল সার্জন ডা. মনোয়ার হোসেন। তিনি জানান, বুধবার সকাল ১০টায় ঢাকা থেকে ফ্রিজার ভ্যানে বরিশাল সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পৌঁছায় করোনা প্রতিরোধক ভ্যাকসিন। যা জেলা সিভিল সার্জন অফিসের ভ্যাকসিন সংরক্ষণাগারে রাখা হয়েছে। দ্বিতীয় চালানে ৫টি প্যাকেটে ৫১ হাজার ডোজ করোনা ভ্যাকসিন এসেছে। দ্বিতীয় ডোজের পাশাপাশি প্রথম ডোজের জন্য যারা রেজিস্ট্রেশন করেছে তাদেরকেও এ টিকা দেওয়া হবে। উল্লেখ্য বরিশাল জেলায় ৭৬ হাজার ৪৫৪ জন করোনার প্রথম ডোজের টিকা গ্রহণ করেছেন।