বাকেরগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধে কুপিয়ে জখমের মামলায় আসামির যাবজ্জীবন কারাদন্ড

বরিশালের বাকেরগঞ্জে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় এক আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মুহাম্মদ মাহবুব আলম আসামির অনুপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। দন্ডপ্রাপ্ত মো. জসিম হাওলাদার বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার মহেশপুর এলাকার মুজাফফার হাওলাদারের ছেলে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন আদালতের বেঞ্চ সহকারীস রেজাউল ইসলাম লিটন। মামলা সূত্রে জানা গেছে, দন্ডপ্রাপ্ত ও তার স্বজনদের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে বিরোধ রয়েছে বাকেরগঞ্জ উপজেলার নিয়ামতি ইউনিয়নের টেংরাখালী এলাকার সোবাহান মোল্লা সাথে। ২০১৬ সালের ২২ জুন বিকেলে সোবাহান মোল্লা মহেশপুর বাজার থেকে নিজ বাড়িতে ফেরার পথে তার ওপর অতর্কিত হামলায় চালানো হয়। এসময় দন্ডপ্রাপ্ত মো. জসিম হাওলাদার রামদা দিয়ে সোবাহান মোল্লার পায়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এ ঘটনায় চিকিৎসাধীন সোবাহান মোল্লার ডান পায়ের হাটুর নিচের অংশ কেটে ফেলতে হয়। এ ঘটনায় ২০১৬ সালের ১ জুলাই সোবাহান মোল্লার ছোট ভাই মনির হোসেন বাদী হয়ে বাকেরগঞ্জ থানায় দন্ডপ্রাপ্ত জসিম হাওলাদার ও তার আরও দুই ভাইসহ পাঁচজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় জসিম ও তার তিন ভাইকে অভিযুক্ত করে ২০১৬ সালের ১৮ নভেম্বর আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন বাকেরগঞ্জ থানার এসআই মো. আউয়াল হোসেন। আদালত সাতজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মো. জসিম হাওলাদারকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করেন।