মঠবাড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে করোনা ব্যবস্থাপনার বরাদ্দ আত্মসাতের অভিযোগ আওয়ামী লীগ নেতার সংবাদ সম্মেলন

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মো. রিয়াজউদ্দিনের বিরুদ্ধে করোনাকালীন বরাদ্দ আত্মসাতের অভিযোগ করেছেন নৌকা প্রতীকের পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী হোসাইন মেশারেফ সাকু। মঙ্গলবার সকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বরিশাল প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন তিনি। লিখিত বক্তব্যে সাকু বলেন, প্রধানমন্ত্রী করোনা ব্যবস্থাপনার জন্য মঠবাড়িয়া উপজেলায় ৫ লাখ ৮৯ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। ইউনিয়ন পর্যায়ে হতদরিদ্র মানুষকে গ্লোভস, স্যানিটাইজার ও মাস্ক বিতরনের জন্য উপজেলা প্রশাসনকে ওই অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়। উপজেলা পরিষদ উপজেলা প্রকৌশলীকে সভাপতি করে একটি কমিটির মাধ্যমে এই অর্থ প্রতিটি ইউনিয়নে বরাদ্দ করার কথা। কিন্তু উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজউদ্দিন আহমেদ সরকারি নীতিমালার অনুযায়ী ওই বরাদ্দ ব্যয় করেননি। ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে এই বরাদ্দের ব্যয় বিবরনী মন্ত্রনালয়ে পাঠানোর কথা থাকলেও উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজউদ্দিন ওই অর্থ খরচ না করে মনগড়া ব্যয় বিবরনী পাঠিয়েছেন। ওই অর্থ সে আত্মসাত করেছে বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবী করা হয়। এছাড়া এক লাখ টাকার একটি বরাদ্দের বিষয়ে কোন আলোকপাত না করেই ওই অর্থ উপজেলা চেয়ারম্যান আত্মসাত করেছেন বলে অভিযোগ করেন মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বানিজ্য বিষয়ক সম্পাদক হোসাইন মোশারেফ সাকু।
মঠবাড়িয়ার একজন সাধারন নাগরিক হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর করোনা ব্যবস্থাপনার বরাদ্দ আত্মসাতের অভিযোগ তদন্ত করে বিচার দাবী করেন হোসাইন মোশারেফ সাকু। এছাড়া নব্য আওয়ামী লীগার রিয়াজউদ্দিনের বিরুদ্ধে বিএনপি ক্ষমতামলে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করা, সংখ্যালঘুদের জমি দখল এবং বঙ্গবন্ধুর ছবি পদদলিত করা সহ বিভিন্ন অভিযোগ মামলা বিচারাধীন আছে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের পরাজিত প্রার্র্থী সাকু। সংবাদ সম্মেলনে মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।