মেহেন্দিগঞ্জে বিয়ের ৯ মাস পর নববধূ প্রেমিকের হাত ধরে উধাও

হিজলা প্রতিনিধি ॥ মেহেন্দিগঞ্জে বিয়ের নয়মাস পরে নববধূ প্রমিকের হাত ধরে উধাও হয়ে পালিয়ে গেছে। ঘটনা সূত্রে জানা যায় মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার আন্ধার মানিক ইউনিয়নের আন্ধার মানিক গ্রামের মালেয়েশিয়া প্রবাসী নান্নু মোল্লার ৮ম শ্রেনীর পড়–য়া কন্যা জান্নাত বেগমের সাথে প্রায় ৯মাস পূর্বে হিজলা উপজেলার বড়জালিয়া ইউনিয়ানের শ্রীপুর গ্রামের কাঞ্চন মোল্লার ছেলের শহীদ মোল্লার সাথে ইসলামী শরিহা মোতাবেক বিয়ে হয়। বিয়ের পরে শহীদ মোল্লা তার স্ত্রী কে পড়ালেখা করার জন্য শশুর বাড়িতে রাখে সেই শুযোগে নববধু জান্নাত বেগম তাদের বাড়ির পাশ্বোবর্তী কাঠ মিস্ত্রী আঃ খালেক কাজীর ছেলে আব্বাস কাজীর সাথে পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে।

সেই প্রেমের সূত্র ধরে গত শনিবার বেলা এগারটায় হিজলা উপজেলা সদর টেকের বাজারে  বোরকা আনার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। একই সাথে  বাড়ির পাশের আমশের আলী সিকদারের ৫ম শ্রেণীতে পড়–য়া কন্যা হালিমা বেগম কে সাথে করে  নিয়ে যায়। বর্তমানে নববধূ জান্নাত ও হালিমা নিখোঁজ  রয়েছে। এব্যাপারে এলাকায় সর জমিনে গেলে এলাকাবাসী জানান ভিন্œমত। এলাকাবাসী জানান জান্নাতের বাবা বিদেশে থাকায় তার মা সুরমা আক্তারের সহযোগীতাই জান্নাত অন্য ছেলের সাথে ঘর থেকে পালিয়ে যায়। তাছাড়া যেই ছেলের সাথে মেয়ের বিয়ে  হয়েছিল সেই ছেলের সাথে তার মার ছিলো পূর্ব পরিচিত ও গভীর সর্ম্পক। এদিকে সাথে নিয়ে যাওয়া  হালিমার পিতা হত দরিদ্র আমশের শিকদার তার মেয়েকে বিভিন্ন আত্মীয় স্বজনের বাড়ীতে সন্ধান করে তার মেয়েকে না পেয়ে পরিবারটি হতাশা হয়ে পরেছে। তিনি আর জানান তার মেয়েকে আব্বাস কাজী  পাচারকারীদের হাতে তুলে দিয়েছে কিনা তানিয়েও রয়েছে সন্দেহ। এঘটনা নিয়ে এলাকাবাসীর মাঝে সৃিষ্ট হয়েছে ব্যাপক তোলপাড়।