স্বাভাবিক জীবনের ফিরছে বরিশালের ১২৮ মাদক সেবী ও ব্যবসায়ী

মাদককে না বলুন’ এই প্রত্যয়ে সাড়া দিয়ে বরিশালে ১২৮ জন মাদক সেবী ও ব্যবসায়ী স্বাভাবিক জীবনে ফেরার প্রত্যয় নিয়েছেন। এই উপলক্ষ্যে তারা বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি মোঃ শফিকুল ইসলামের কাছে আত্মসমর্পন করেন। বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় পুলিশ লাইন্সে এই অনুষ্ঠানে জেলার দশ উপজেলা থেকে আত্মসমপর্ণকারীরা অংশ নেয়। এখানে বরিশাল রেঞ্জ পুলিশের উপ মহা পরিদর্শক (ডিআইজি) মোঃ শফিকুল ইসলাম প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শপথ বাক্য পাঠ করান। শুরুতে আত্মসমপর্ণকারীদের ফুল দিয়ে বরণ করেন তিনি। এসময় স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে ৫৮ জনকে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়। মাদক সেবী ও ব্যবসায়ীরা বলেন, বন্ধুদের কবলে পড়ে বা হতাশা থেকে মাদকের নেশায় আসক্ত হয়ে পড়েন। এতে করে তাদের পরিবারের সাথে বিরোধ ও সমাজের মানুষ ঘৃনার চোখে দেখেন। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে থানা পুলিশের সহায়তা করার আহবানে সাড়া দিয়ে তারা আজকে আত্মসমপর্ণ করেছেন। বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার ছিলেন জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেন, বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ হাবিবুর রহমান। এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, বরিশাল সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সভাপতি এস এম ইকবাল, বানারীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ফারুখ, পৌর মেয়র সুভাষ চন্দ্র শীল প্রমূখ। এসময় পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, যাদের বিরুদ্ধে মাদক মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা কিংবা দন্ড রয়েছে তাদের আত্মসমর্পনের সুযোগ দেওয়া হয়নি। পূর্বের মাদক মামলায় যারা জামিনে আছেন তাদের এবং যাদের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার অভিযোগ আছে কিন্তু মামলা নেই তাদের আত্মসমর্পনের সুযোগ দেওয়া হয়েছে। অতীতে যাদের মাদক মামলা রয়েছে তাদের আইন অনুযায়ী আদালতে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। এর আগে সোমবার পটুয়াখালীতে ৭৭ জন মাদব সেবী ও বিক্রেতা আত্মসমর্পন করেন। ওই দিন সেখানে ১০ জনের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়। এছাড়া ভোলা জেলায় ৫৫ জন মাদক সেবী ও বিক্রেতা আত্মসমর্পণ করেছে। সবমিলিয়ে বরিশাল বিভাগের ৩ জেলায় এ পর্যন্ত ২৬০ জন মাদক সেবী ও বিক্রেতা আত্মসমর্পণ করেছেন বলে জানান ডিআইজি মোঃ শফিকুল ইসলাম বিপিএম।