হিজলায় গাছে বেঁধে এক যুবককে নির্যাতন

বরিশালের হিজলা উপজেলার কাউরিয়া বাজারে এক যুবককে গাছে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে। নির্যাতনের সময় ওই যুবকের স্ত্রী তার স্বামীকে বাঁচাতে গেলে তাকেও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। শুধু তাই নয়, দুই প্যাকেট সিগারেট চুরির অভিযোগে ওই যুবকক ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে ৭ দিনের মধ্যে এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন নির্যাতনে অভিযুক্ত ব্যবসায়ী। নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টার দিকে হিজলার কাউরিয়া বাজারে এই ঘটনা ঘটে। নির্যাতিত ব্যক্তির নাম নির্মল চন্দ্র দাস। তিনি ওই উপজেলার বড়জালিয়া ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রামের বিজয় দাসের ছেলে। অভিযুক্ত ব্যবসায়ীর নাম সালাম সরদার। তিনি কাউরিয়া বাজারের একজন মুদি ব্যবসায়ী। ১৬ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়, নির্মলের দুই হাত পিঠমোড়া করে সুপারি গাছের সাথে বেঁধে লাঠি দিয়ে পেটাচ্ছেন অভিযুক্ত ব্যবসায়ী সালাম সরদার। তাদের ঘিরে দাড়িয়ে আছেন উৎসুক জনতা। তবে তাদের কেউ নির্মলকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেনি। খবর পেয়ে নির্মলের স্ত্রী রূপা দাস তার স্বামীকে রক্ষা করতে গেলে তাকেও ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় সে। পরে নির্মলকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে ৭ দিনের মধ্যে এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার শর্তে ছেড়ে দেয় ব্যবসায়ী সালাম। স্থানীয়রা জানায়, ব্যবসায়ী সালামের সাথে নির্মলের সুসম্পর্ক রয়েছে। এই সুবাদে নির্মল প্রায়ই সালামের দোকানে আড্ডা দেয়। ব্যবসায়ী সালামের দোকানের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, গতকাল সকাল ৮ টার দিকে নির্মল ওই দোকানে যায়। এ সময় সালাম ক্যাশকাউন্টার ফাঁকা রেখে অন্যত্র ব্যস্ত ছিলেন। ক্যাশ কাউন্টার ফাঁকা থাকার সুবাদে নির্মল ওই দোকানে ব্যাগের মধ্যে লুকিয়ে রাখা ২ প্যাকেট সিগারেট কোমড়ে লুঙ্গিতে গুজে সটকে পড়ে।নির্মলের স্ত্রী রূপা দাস বলেন, গতকাল সকালে ব্যবসায়ী সালাম সরদার তার স্বামীকে বাড়ি থেকে খবর দিয়ে বাজারে ডেকে নেয়। সেখানে যাওয়ার পরই তার স্বামীকে গাছে বেঁধে লাঠি দিয়ে পেটানো হয়। তিনি ছাড়াতে গেলে তাকেও ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় সালাম সরদার। রূপা বলেন, আমার স্বামী চুরি করলে তাকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করা উচিত ছিলো। আইনে তার বিচার হতো। কিন্তু সেটা না করে তাকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। আবার ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে ৭ দিনের মধ্যে এলাকা ত্যাগ করতে বলা হয়েছে। তিনি এই জুলুমের বিচার দাবী করেন। কাউরিয়া বাজারের ব্যবসায়ী সালাম সরদার বলেন, দোকান খোলা রেখে ব্যক্তিগত কাজে একটু বাইরে গিয়েছিলেন তিনি। দোকানে ফিরে ক্যাশ কাউন্টার এলোমেলো এবং সিগারেট রাখার ব্যাগ যথাস্থানে না দেখে তার সন্দেহ হয়। পরে সিসি ক্যামেরা ফুটেজে দেখেন নির্মল তার দোকান থেকে ২ প্যাকেট সিগারেট চুরি করে নিয়েছে। এ কারনে তাকে ধরে মারধর করার কথা স্বীকার করেন ব্যবসায়ী সালাম।এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না বলে দাবী করেছেন কাউরিয়া বাজার বনিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অশোক কুমার চ্যাটার্জী। তবে এ ধরনের ঘটনা ঘটে থাকলে সেটা দুঃখজনক বলে তিনি মন্তব্য করেন।এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর গতকাল বিকেলে হিজলা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তারেক হাসান রাসেল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। মুঠোফোনে পুলিশ পরিদর্শক তারেক হাসান রাসেল বলেন, প্রত্যক্ষদর্শীদের সাক্ষ্য নেয়া হয়েছে। এক যুবককে গাছে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগে ব্যবসায়ী সালাম সরদারকে শনিবার বিকেল ৪টার দিকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে মামলা দায়ের সহ আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন তিনি।