হিজলায় বিয়ের প্রলোভনে মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ ॥ ধর্ষক আটক

বরিশালের হিজলা উপজেলার বড়জালিয়া ইউনিয়নের উত্তর বাউশিয়া ৯ নং ওয়ার্ডে লাবনী আক্তার (১৭) নামে একজন মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার বেলা ১১ টায় হিজলা থানায় ধর্ষিতা লাবনী উপস্থিত হয়ে ইসমাইলের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।
শনিবার মধ্য রাতে নিজ ঘরে ধর্ষনের শিকার হয়েছে ঐ কিশোরী ছাত্রী। ধর্ষণের স্বীকার লাবনী বাহেরচর মাদরাসার অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী এবং মৎস্যজীবি কালাম সরদারের মেয়ে। এলাকাবাসী ধর্ষক মো. ইসমাইল হোসেন ঢালীকে আটক করে হিজলা থানায় খবর দিলে এস আই ফারুক ধর্ষককে থানায় নিয়ে যায়। হিজলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অসীম কুমার সিকদার জানান, হিজলা থানায় ধর্ষণ মামলাটি গ্রহণ করা হয়েছে। মাদরাসা ছাত্রী কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বরিশাল শেবাচিমে পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্ত আসামীকে আটক এলাকাবাসী আটক করে থানায় সোপর্দ করে।
ওসি আরও জানায়, একই এলাকার বাহেরচর মাদরাসার দাখিলের ছাত্র মো. ইসমাইল হোসেন ঢালী সে মৎস্যজীবি বাকের ঢালীর ছেলে লাবনীর সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। প্রেমের এক পর্যায়ে বিয়ের প্রলোভনে দীর্ঘ দিন ধরে তাকে ধর্ষণ করে আসছে। বিষয়টি মেয়ের পরিবার বিয়ের মাধ্যমে মীমাংসা করতে চাইলেও ছেলের বাবা রাজি না হওয়ায় তা হয়নি। শনিবার রাতে ছেলেটি পুনরায় মেয়ের বাড়িতে ঢুকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করার এক পর্যায়ে টের পেয়ে এলাকাবাসী ঘরের মধ্যে ঢুকে খাটের নিচ থেকে ধর্ষক ইসমাইলকে আটক করে।